এবার থেকে সরকারি চাকরি পাবে না জেনারেল-রা

0
366

নীচের দিকে স্ক্রল করুন আর পান অজানা খবরের সন্ধান ।

জীবনে শৈশব পেরিয়ে কিশোরে পা রেখে একে একে ধাপে ধাপে আমাদের জীবন অতিবাহিত হয় আর এই জীবনে সঙ্গে চলতে চলতে জীবনে এক গুরুত্বপূর্ন অঙ্গ হয়ে দাঁড়ায় শিক্ষা ।ছোট থেকে মা-বাবা কাছে যেমন মানুষ শেখে মানবিকতার শিক্ষা যা তাকে সমাজের উপযুক্ত বানায়।অপরের প্রতি ভালোবাসা,স্নেহ,সৌজন্যবোধের শিক্ষা যেমন আমাদের সামাজিকীকরনের মাধ্যম তেমনি প্রথাগত শিক্ষা  আমাদের সমাজে টিকে থাকার জন্য দরকার হয়।আস্তে আস্তে অ-আ-ক-খ এর সীমানা পেরিয়ে কলেজ গন্ডি পেরিয়ে বৃহত ক্ষেত্রে  নিজেদের লড়াই এ ব্রতী হয় জীবনে প্রতিষ্ঠিত করার জন্য ।

ছবির সৌজন্যে Google

কিন্তু সেখানে থাকে প্রচুর বাধা।আর এক থাকে কাস্ট সিস্টেম যার জন্য প্রচুর ছাত্র ছাত্রীদের মধ্যে অসন্তোষ দেখা যায়।

‘পশ্চিমবঙ্গে জেনারেল হয়ে জন্মানো পাপ’-ক্ষোভের মধ্যে এমনই বক্তব্য করে থাকে অনেকে ।এবার সে দলে নাম লেখালেন নার্সরা।নার্সরাও এবার এমনই দাবী করছেন যে পশ্চিমবঙ্গে জেনারেল হয়ে জন্মানো পাপ।

ছবির সৌজন্যে Google

বর্তমানে অনেকেই নিজের জীবনকে তাড়াতাড়ি প্রতিষ্ঠিত করার জন্য উচ্চ মাধ্যমিক দেওয়ার পর নার্সিং ট্রেনিং এ যান।এতে মানুষকে সেবার সুযোগ যেমন মেলে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করারও সুযোগ মেলে।সমাজের একজন হয়ে উঠতে পারে তারা এছাড়াও সমাজের গুরুত্বপূর্ন মানুষ হিসেবে অংশগ্রহন করতে পারে মানুষের পাশে দাঁড়াতে পারেন।

তবে সমস্যা শুরু হলো এখানেও।আগে আমজনতা মনে করতেন সরকারী স্কুল থেকে নার্সের ট্রেনিং পাশ করলে তাদেরকে কাজে নিযুক্ত করা হয়।পাশ করলেই সরকারী চাকুরী ।তবে একথা একেবারেই যুক্তিহীন ও ভুল তা প্রমান করে দিলেন স্বাস্থ্য ভবন।কিছুদিন আগে সংবাদ মাধ্যম প্রকাশ করা হয়েছে এ বছর কতজন নার্স নিয়োগ করতে চলেছেন সরকার ।তবে সেখানে দেখা যায় 4976 জন সেবিকাকে নিয়োগ করা হবে।

ছবির সৌজন্যে Google

তবে এখবর পেতেই  জেনারেল নার্সদের রাতের ঘুম উড়ে যায়।কেননা তাতে দেখা যাচ্ছে জেনারেল ক্যাটাগরির কোনো নার্স নিচ্ছেনা সরকার ।এরফলে স্বাভাবিক ভাবেই ক্ষোভ ও রাগান্বিত হয়ে পরেন তারা।18 তারিখ দুপুর বেলা 12 টার সময় বিক্ষোভ দেখান।তাদের বক্তব্য ছিল-

1.সরকার কেন ক্যাটাগরি দেখে কর্মী নিয়োগ করছেন,মেধার কী কোনো দাম নেই? যোগ্যতা অনুযায়ী  নার্স নিয়োগ হোক।

2.শারিরীক ভাবে অক্ষম মেয়েদের জন্য 500 সীট কেন রাখা হল?যারা নিজেরা অক্ষম তারা অপরের স্বাস্থ্য পরিষেবা দিতে পারবে।

ছবির সৌজন্যে Google

এ খবরটি জানাজানি হতেই সোশ্যাল মিডিয়াতে ছড়িয়ে পড়ে ।ছাত্ররা এবং সকলের মনে একটাই প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে “যেখানে সরকার স্বাস্থ্য নিয়ে খেলা করতে দক্ষতা বিচার না করে কেবলমাত্র ক্যাটাগরির ভিত্তিতে নার্স নেওয়া হচ্ছে ,স্বাস্থ্য সম্পর্কিত জটিল বিষয়ে এরকম অবস্থা তাহলে সাধারন চাকরির পরীক্ষাগুলোতেতো যেকোনো সময় জেনারেলদের জন্য বন্ধ হয়ে যাবে।

এছাড়া ভারতীয় শীর্ষ আদালত জানাচ্ছে এবার থেকে জেনারেলদের চাকরির কোঠাও প্রায় বন্ধ করে দেওয়া হবে, যা নিয়ে ফুসছে সকলে

এই তথ্যগুলি অবশ্যই আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করবেন, আপনিও জানুন তাদেরকেও জানান, শেয়ার করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here